মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ০১:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আমি ঘরে ঘুমিয়ে থাকলেও পাস করব : মেজর আখতার
Update : শুক্রবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২৩, ১০:৩৯ অপরাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট : ‘আমি আজকে বিএনপির পতন ঠেকানোর জন্য আমার জীবনটা সামনে লেলিয়ে দিয়েছি। শুরু হবে টার্নিং পয়েন্ট ৭ জানুয়ারি থেকে। আমি ট্রাক থামাব, বিএনপির পতনের ট্রাক ইনশাল্লাহ থামাব। আমি এ জন্য একজন মাত্র সারা বাংলাদেশে বিরোধী দলের প্রার্থী দাঁড়িয়েছি। মনে রাইখেন। একজন, যে শেখ হাসিনার বিরুদ্ধে কথা বলে। আপনারা (আওয়ামী লীগের নেতাদের উদ্দেশে বলেন) আমাকে সমর্থন করেছেন ধন্যবাদ। সেটাও শেখ হাসিনাকে বাঁচানোর জন্যই। নির্বাচনে দাঁড়িয়েছি বিরোধী দলে আমি একজন। আমি ঘরে ঘুমিয়ে থাকলেও পাস করব। কেন বলছি, এগুলো হলো রাজনৈতিক বাস্তবতা।’

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) রাতে কটিয়াদী উপজেলার মসূয়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আয়োজিত এক পথসভার মঞ্চে আওয়ামী লীগ নেতাদের উপস্থিতিতে এসব কথা বলেন কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনের ট্রাক প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা সাবেক সংসদ সদস্য মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান রঞ্জন।

তিনি তার বক্তব্যে আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী কিশোরগঞ্জের জেলার সংসদ সদস্যদের জন্য ভোট চেয়েছেন। বিকেলবেলায় তিনি কিশোরগঞ্জের স্টেডিয়ামে মিটিং করে ঢাকা থেকে ভিডিওর মাধ্যমে ভোট চেয়েছেন। উনি কী বলছেন শুনবেন। উনি বলছেন, এবার যেহেতু নির্বাচন নিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নানা রকম চক্রান্ত হচ্ছে। সেই জন্য নির্বাচনের পরিবেশটা যাতে সুন্দর হয়, উৎসবমুখর হয় এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হয় এই কারণে আমরা উন্মুক্ত করে দিয়েছি। নৌকা মার্কা দিয়েছি। পাশাপাশি আরও যারা দাঁড়াতে চায় তারাও দাঁড়াবে। নির্বাচনে শান্তির পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যার যার ভোট সে দেবে। যার যার ভোট সে চাইবে। জনগণ যাকে খুশি তাকে ভোট দেবে। আপনাদের কিন্তু কয়নাই কই ভোট দিতে হইব। জনগণ যারে পছন্দ করবে তারেই ভোট দেবে। এ রকম বক্তব্য তো অন্য জেলায় দেয় নাই। উনি তো সব জেলায় বক্তব্য দিচ্ছে। তার মানে কি চাচ্ছেন নৌকা তো (জেলার) বাকি চারটের মধ্যে যাইবই। আর একটা নৌকা যেন না আইয়ে এই পথটা উনি রাইখা দিছেন। কাজেই ভাই আপনাদের ভয় পাওয়ার কিছু নাই।

উল্লেখ্য, কিশোরগঞ্জ-২ (কটিয়াদী-পাকুন্দিয়া) আসনে এবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, আওয়ামী লীগ দলীয় নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আবদুল কাহার আকন্দ, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ফ্রন্টের (বিএনএফ) টেলিভিশন প্রতীকের প্রার্থী বিল্লাল হোসেন, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আম প্রতীকের প্রার্থী আলেয়া ও গণফ্রন্টের মাছ প্রতীকের প্রার্থী মীর আবু তৈয়ব মো. রেজাউল করিম।

এ ছাড়াও দুই স্বতন্ত্র ট্রাক প্রতীকের প্রার্থী বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা মেজর (অব.) আখতারুজ্জামান ও ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনয়নবঞ্চিত পাকুন্দিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক সাবেক এমপি সোহরাব উদ্দিন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন নির্বাচনে।

পাপ্র/ এসআর

 

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের ফেইসবুক পেইজ