বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৪:৩১ পূর্বাহ্ন

হাসছে কৃষক গাইছে গান সোনালী ফসলে জুড়াবে প্রাণ

আশরাফুল ইসলাম মুরাদ
  • Update Time : রবিবার, ২১ মার্চ, ২০২১
  • ২৬ Time View

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার প্রায় সকল ইউনিয়নের কৃষকরাই স্বপ্ন দেখছে বোরো ধানের বাম্পার ফলনের।

আমাদের দেশের চাষী জমির প্রায় ৮০% শতাংশ জমিতেই ধান চাষ করেছে এদেশের কৃষকরা। এবার বোরো ধান চাষ করে কৃষকরা বাম্পার ফলনের আশা করছে, ধান গাছের নমুনা থেকে ধারনা করা যায় যে সোনালী ফসলে ভরে উঠবে কৃষকের ঘোলা।

কৃষকের স্বপ্নের ফসল হল বোরো ধান। যার ওপরের নির্ভর করে কৃষকের সমগ্র বছরের খাদ্য। কৃষি কে সমৃদ্ধশালী করতে পাকুন্দিয়া কৃষি কর্মকর্তা আল আমিন জানান, সরকার কৃষিতে উচ্চ ফলনের লক্ষ্যে সকল প্রকার প্রনোদনা দিচ্ছে তার অংশবিশেষ পাকুন্দিয়ার কৃষকরাও পেয়েছে। যেমন:- গমের বীজ, ধান বীজ, সূর্যমুখীর বীজ, মুগডাল বীজ ও সার। এছাড়াও সকল প্রকার কৃষি পরামর্শ ও কৃষকের কল্যানে এগিয়ে আসবে পাকুন্দিয়া কৃষি কর্মকর্তারা।

কৃষক নুরুল ইসলাম জানান, এবার অন্য বছরের তুলনায় অনেকটাই বেশি ফলন আশা করা হচ্ছে, বিগত বছর গুলোতে যেমন ব্যাপকহারে বিভিন্ন রোগ বালাই আক্রমণ করে ছিল এবার তার চেয়ে অনেকাংশে কম, যাতে করে বেশি ফলনের আশা করা যায় এবং অন্য বছরের তুলনায় এবার সেচ পদ্বতি সহজিকরণ হয়েছে। আগে যেখানে সেলু মেশিন দিয়ে সেচ দেওয়া হতো বর্তমানে বিদ্যুৎ লাইনের মাধ্যমে ওয়াটার পাম্প দিয়ে সেচ দেওয়া হচ্ছে। এখন আগের তুলনায় টাকা,সময় ও পরিশ্রাম একদমই কম লাগছে।

আলোকচিত্র : পাকুন্দিয়ার একটি ধান জমি।

কৃষি মাঠ পরির্দশন করে জানা যায় অন্য অন্য বছরে চেয়ে এবার ধান গাছের গ্রােত অনেকাংশে ভালো যে সকল বালাই আক্রমণ করে থাকে তার প্রভাব অন্য বছরের তুলনায় অনেকটাই কম যার ফলে কীটনাশক প্রয়োগের মাত্রাও অনেকাংশে কম বলে জানা যায়। তাই ধান গাছের হাওয়ায় দোল দেখে নেচে উঠে হাসছে কৃষকের মনও।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের কোনো কনটেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
কারিগরি সহযোগিতায়: Ashraf Ali Sohan
www.ashrafalisohan.com