ঢাকাTuesday , 18 May 2021
  • অন্যান্য
  1. অপরাধ
  2. অর্থনীতি
  3. আইটি বিশ্ব
  4. আজকের পত্রিকা
  5. আন্তর্জাতিক
  6. আবহাওয়া সংবাদ
  7. ইউনিয়ন নির্বাচন
  8. ইতিহাস
  9. ইসলাম ও জীবন
  10. ঐতিহ্য
  11. কবিতা
  12. করোনা
  13. কৃতি সন্তান
  14. কৃষি সংবাদ
  15. খেলা
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পাকুন্দিয়ায় বাড়িঘরে হামলা,ভাংচুর ও লুটপাট ৯৯৯ এ ফোন করে রক্ষা !

প্রতিবেদক
Nazmul
May 18, 2021 5:45 pm
Link Copied!

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জে‌রে বা‌ড়ি‌তে হামলা, ভাঙচুর ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে । এ সময় ৯৯৯ কল দিলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

গতকাল সোমবার (১৭ মে) বিকেল থেকে রাত ১০ পর্যন্ত উপজেলার পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের মহিষকান্দা গ্রামের আঃ রহমান মাষ্টারের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে। ভুক্ত‌ভোগী প‌রিবার সূ‌ত্রে জানা গে‌ছে, ওই গ্রা‌মের আঃ রহমানের ছেলে মোঃ সোহাগ মিয়া এর সা‌থে চাচাতো ভাই একই গ্রা‌মের মানিক মিয়ার পুত্র ইয়াছিন (২০) গং‌দের দীর্ঘ‌দিন ধ‌রে জমি-জমা নি‌য়ে বি‌রোধ চ‌লছিল। এর জেরে কিছু দিন ধ‌রে মানিক মিয়ার প‌ক্ষের লোকজন সোহাগ মিয়া ও তার প‌রিবা‌রের লোকজন‌কে নানাভা‌বে হুম‌কি দি‌য়ে আস‌ছে। এর আগে গত ২৬ মার্চ (শুক্রবার) রাত আনুমানিক ৮ টার দিকে সোহাগ মিয়ার পিতা আবদুর রহমান, ভাতিজা আশরাফুল ইসলাম ও নাছির উদ্দিনকে নিয়ে ওষধ কিনতে দরগা বাজারে যায়। সেখান থেকে ফেরার পথে মানিক মিয়ার ছেলে ইয়াসিন মিয়া, নাঈম, ফরিদ মিয়ার ছেলে আরমান মিয়া, হেলাল উদ্দিনের ছেলে মোস্তাকিম, মৃত ইসরাইল মিয়ার ছেলে কাঞ্চন, নুরুল ইসলামের ছেলে মুকুল, মৃত মফিজ মিয়ার ছেলে নুরুল ইসলাম আবু কালামের ছেলে হাকিম ও মোঃ ইবরাহিমের ছেলে মজিবুর রহমান তাদের পথরোধ করে ও তাদের উপর দেশীয় অস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় সোহাগ মিয়ার পিতা আবদুর রহমানের পকেটে থাকা ৭২ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নেয় তারা।

পরে আহতদের ডাক-চিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে তাদের উদ্ধার করে পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য আশরাফুল ইসলাম অপুকে কিশোরগঞ্জ সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় ৯ জনের নাম উল্লেখ করে আঃ রহমানের ছেলে মোঃ সোহাগ মিয়া পাকুন্দিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করার পর থেকেই অভিযুক্তরা ১৭ মে (সোমবার) কয়েক দফায় বাড়িঘরে হামলা, ভাংচুর ও লোটপাট চালায়। ১৮ মে (মঙ্গলবার) সরেজমিনে গেলে ১৫ থেকে ২০ টি ঘর লোটপাটসহ বিদ্যুতের মিটার ভাংচুর করা হয়েছে বলে দেখা যায়। এ সময় অভিযুক্ত ইয়াসিন গংদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা এসব হামলা ভাংচুরের কথা অস্বীকার করে জানান, সুহাগ মিয়া গংরা তাদের ওপর হামলা চালিয়েছে।

এবিষয়ে পাকুন্দিয়া থানায় অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ সারোয়ার জাহান জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিরোধ চলছে। আগেও দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি মামলা হয়েছিল পাকুন্দিয়া থানায় পুলিশ তাহার চার্জশিট বিজ্ঞ আদালতে পেরণ করেছে। গত রাতে দুই পক্ষের বা‌ড়ি‌তে হামলা, ভাঙচুর শরু হলে ৯৯৯ কল দিলে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পর্যন্ত কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি, লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্হা নিবে।