শনিবার, ১২ জুন ২০২১, ১১:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনাম:
পাকুন্দিয়া প্রতিদিন আরও সমৃদ্ধ ও পাঠকপ্রিয় হয়ে উঠবে আগামী দিনগুলোতে সেসময়ে ইন্টারনেট এতটা গতিশীল ছিল না,কিন্তু পাকুন্দিয়া প্রতিদিন এর খবর গুলোর জনপ্রিয়তা ছিল ৪ ম্যাচ নিষিদ্ধ করা হয়েছে সাকিবকে বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে ; বাড়তে পারে বৃষ্টিপাত জুয়া,ও মাদক নির্মূলে মসজিদে পাকুন্দিয়া থানা ওসির প্রচারনা স্বতন্ত্র কিছু বৈশিষ্ট্যের কারণেই পত্রিকাটি পাকুন্দিয়ার মানুষের কাছে জনপ্রিয় রাগে উইকেট ভেঙে ফেলেন সাকিব ; অবশেষে চাইলেন ক্ষমা আমি যে কয়টি অনলাইন পত্রিকা পড়ি তাদের মধ্য পাকুন্দিয়া প্রতিদিন অন্যতম করোনায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় ৪৩ জনের মৃত্যু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস আজ

কিশোরগঞ্জের খ্যতিমান ব্যাক্তিত্ব শাহ আবদুল হান্নান আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার
  • Update Time : বুধবার, ২ জুন, ২০২১
  • ১৬৮ Time View

দিগন্ত মিডিয়া করপোরেশনের চেয়ারম্যান শাহ আবদুল হান্নান আর নেই। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ বুধবার তিনি ইন্তেকাল করেন।

শাহ আবদুল হান্নানের ভাই শাহ আবদুল হালিম বলেন, গত ৮ মে থেকে তিনি হাপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় দ্বিতীয় দফায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে তিনি ইন্তেকাল করেন।

আজ বুধবার বাদ জোহর মরহুমের প্রথম জানাজা ধানমন্ডি ইদগাহ মসজিদে, বাদ আসর দ্বিতীয় জানাজা বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে এবং এর পরে শাহজাহানপুরের কবরস্থানে তার দাফন সম্পন্ন হবে বলে জানানো হয়েছে।

শাহ আবদুল হান্নান ছিলেন একজন ইসলামী চিন্তাবিদ, শিক্ষাবিদ, লেখক, অর্থনীতিববিদ ও সমাজ সেবক। তিনি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর ছিলেন। এছাড়াও তিনি দারুল ইহসান বিশ্ববিদ্যালয় ও নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা উদ্যোক্তা এবং ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের সাবেক চেয়ারম্যান ছিলেন।

শাহ আবদুল হান্নান ১৯৩৯ সালের ১ জানুয়ারি বৃহত্তর ময়মনসিংহের কিশোরগঞ্জ জেলার কটিয়াদী থানার কুড়িখাঁই গ্রামের বিখ্যাত শাহ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫৯ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অর্থনীতি ও রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে স্নাতক এবং ১৯৬১ সালে স্নাতকোত্তর সম্পন্ন করেন।

শাহ হান্নান তার কর্মজীবন শিক্ষকতার পেশা দিয়ে শুরু করেন। তিনি ১৯৬২ সালে ঢাকা কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের প্রভাষক হিসাবে যোগ দেন। ১৯৬৩ সালে তিনি পাকিস্তান ফিন্যান্স সার্ভিসে যোগ দেন। ১৯৯৮ সালে সর্বশেষ বাংলাদেশ সরকারের সচিব পদ থেকে অবসর গ্রহণ করেছিলেন।

এর মাঝে তিনি ছিলেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের চেয়ারম্যান, যেখানে তিনি ভ্যাট চালুর অন্যতম প্রবক্তা ছিলেন। তিনি অর্থ মন্ত্রণালয়ের ব্যাংকিং বিভাগ, সমাজ কল্যাণ ও সর্বশেষ অর্থ মন্ত্রণালয়ের আভ্যন্তরীন সম্পদ বিভাগের সচিব ছিলেন। এর আগে বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর, দুর্নীতি দমন ব্যুরোর মহাপরিচালক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন । শাহ হান্নান এক ছেলে, এক মেয়ে, তিন ভাই অনেক আত্মীয় স্বজন ও গুণগ্রাহী রেখেগেছেন।

 

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category
© ২০১৬ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | এই ওয়েবসাইটের কোনো কনটেন্ট অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বেআইনি
কারিগরি সহযোগিতায়: Ashraf Ali Sohan
www.ashrafalisohan.com