শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ১২:১৭ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পাকুন্দিয়ায় ত্রিমুখী সংঘর্ষঃ যে ২৩ জনকে গ্রেফতার করলো পুলিশ (নাম-পরিচয়সহ)
Update : রবিবার, ৪ সেপ্টেম্বর, ২০২২, ৯:০০ অপরাহ্ণ

স্টাফ রিপোর্টার : কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় পুলিশের সাথে বিএনপি নেতা-কর্মীদের দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার ২৩ জনকে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

তারা হলোঃ –
হাপানিয়া এলাকার মৃত আলাউদ্দিনের ছেলে মোঃ আকবর আলী (২৮), হোসেন্দী নামাপাড়া এলাকার গোলাপ মিয়ার ছেলে রাকিব মিয়া (২৩), চরকাওনা বিএসসি বাড়ির সাইফুল ইসলামের ছেলে তামিম (১৯), চরকাওনা মধ্যপাড়া এলাকার কাজল মিয়ার ছেলে তৌফিকুল ইসলাম (১৯), পাটুয়াভাঙ্গা ইউনিয়নের কুমরি গ্রামের মৃত আবদুল হাইয়ের ছেলে কামরুল ইসলাম (৩৫), চরপলাশ ভূইয়া বাড়ির মৃত মনির উদ্দিনের ছেলে কালাম ভূইয়া (২৮), টান লক্ষিয়া এলাকার হাশেমের ছেলে রফিকুল ইসলাম (১৮), সৈয়দগাঁও এলাকার মৃত আবদুল গফুরের ছেলে বিল্লাল হোসেন (৫৫), চরতেরটেকিয়া এলাকার লালমিয়ার ছেলে রিয়াদ হোসেন (১৯), চরকাওনা ডিগ্রীর চর এলাকার কামাল উদ্দিনের ছেলে ইমন (১৯), সাটিয়াদূ এলাকার মৃত আবদুল মান্নানের ছেলে মুখলেছ (৪৮), সৈয়দগাঁও দক্ষিণপাড়া এলাকার আবদুল কাদিরের ছেলে আবদুল কাইয়ূম (৩৩), পাইক লক্ষিয়া এলাকার ফারুক মিয়ার ছেলে মহসিন (১৯), ছযচির গ্রামের বাবুর মিয়ার ছেলে জিহাদ (১৯),
শৈলজানি গ্রামের কিবরিয়ার ছেলে রাকিব হোসেন (১৯), সৈয়দগাঁও এলাকার রুকন উদ্দিনের ছেলে সাব্বির আহমেদ (১৯), হোসেন্দি উত্তরপাড়া এলাকার মোহাম্মদ আলীর ছেলে সুমন মিয়া (৩৪), টান লক্ষিয়া এলাকার মৃত আবদুল কুদ্দুসের ছেলে রফিকুল ইসলাম (২২), সৈয়দগাঁও এলাকার মৃত শফিউদ্দিন মেম্বারের ছেলে ইশান (২৫), চরতেরটেকিয়া এলাকার আবদুল ওয়াহাবের ছেলে রহমত উল্লাহ রুবেল (৩৬), হোসেন্দী পূর্বপাড়া এলাকার সবুজ মিয়ার ছেলে আশিক (২০), সিরাজুল হকের ছেলে লিটন (৩২), সবুজ মিয়ার ছেলে আজালীন (২৬)।

শনিবার (৩সেপ্টেম্বর) পাকুন্দিয়া উপজেলা বিএনপির পূর্ব ঘোষিত কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে “বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ” কে কেন্দ্র করে বিএনপি, পুলিশ ও আওয়ামী লীগের মধ্যে ত্রিমুখী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে। এ সময় পুলিশসহ উভয় পক্ষের অন্তত ২০০ নেতাকর্মী আহত হয়।

এ দিকে ৩ সেপ্টেম্বর রাতে পাকুন্দিয়া থানার সাব-ইন্সপেক্টর (এসআই) শাহ কামাল বাদি হয়ে সন্ত্রাস বিরোধী আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। এতে উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট জাজাল উদ্দিনকে প্রাধান আসামি করে ১৩৮ জনের নাম উল্লেখ ও অজ্ঞাত দেড় হাজারজনকে আসামি করা হয়। গ্রেফতার করা হয় ২৩ জনকে।

পাপ্র/সুআআ

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের ফেইসবুক পেইজ