শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১১:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
করোনা পরিস্থিতিতে পাকুন্দিয়ার ইউএনও নাহিদ হাসানের অদম্য পথচলা
/ ১৬৭ Time View
Update : বুধবার, ৬ মে, ২০২০, ১০:২২ পূর্বাহ্ণ

হুমায়ুন কবির, স্টাফ রিপোর্টার :

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদ হাসান এমনই একজন যার কর্মগুনে স্থান করে নিয়েছেন সবার মাঝে। রয়েছে একজন সৎ দক্ষ জনবান্ধন অফিসার হিসেবে সর্বজন স্বীকৃত তাঁর।

যেখানে শত জনপ্রতিনিধি নেতা কর্মীদের ছায়া আজ দেখা যায় না, যেখানে তিনি মানুষের মুখে দুমুঠো অন্ন তুলে দিতে ব্যাস্ত দিনরাত। পাশাপাশি করোনা থেকে উপজেলার সকল মানুষের নিঃছিদ্র নিরাপত্তা দিতে আপোষহীন ভাবে সকল ব্যবস্থাও গ্রহণ করছেন তিনি।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিহত করতে দিনরাত নিজের জীবন বিপন্ন করে ছুটে যাচ্ছেন বিপদ গ্রস্তদের দুয়ারে। অসহায় ও কর্মহীন মানুষদের সাথে কথা বলিলে তারা জানান, আমাদের পাকুন্দিয়া ইউএনও একজন ভাল মানুষ। তিনি বাড়ি বাড়ি এসে আমাদের খাদ্যসামগ্রী দিয়ে গেছেন। আমরা তার সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি।

উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিহত করতে ২৬ সদস্যের টিম গঠন করেছেন তিনি। উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের একটি পৌরসভা সহ সার্বিক বিষয় তদারকির করার জন্য পাকুন্দিয়া উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (ভূমি) লুফৎরহমান ও পাকুন্দিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ মফিজুর রহমান কেনিয়ে কাজ করেছেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাহিদ হাসান বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে দেশের অসহায় গরীব ও কর্মহীনদেরমাঝে সরকারের সাহায্য সঠিকভাবে বাড়িতে পৌঁছাতে দিতে আমি বদ্ধপরিকর।

উপজেলার বাইরে থেকে যে সকল লোকজন এসেছে তাদের হোম কোয়ারান্টাইন এবং করোনা ভাইরাসের কারনে সার্বিক মৃতু্বরণ করিলে যাতে দ্রুত যথাযথ পদক্ষেপ গ্রহণের জন্যই ১০ সদস্য একটি টিম সার্বক্ষনিক কাজ করার জন্য গঠন করা হয়েছে ।

তিনি আরও বলেন, এছাড়াও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা: মো : হাসিবুর সাত্তারেরর নেতৃত্বে করোনা ভাইরাসের পরীক্ষা ও বহিরাগতদের হোম কোয়ারান্টাইন নিশ্চিত করা হচ্ছে। পাশাপাশি শুরু থেকেই সরকারি ত্রাণ বিতরণ অব্যহত রয়েছে। আমাদের মাননীয় সাংসদ নূরমোহাম্মদ মহোদয় ব্যক্তিগত তহবিল থেকে অনুদান দিয়েছেন।

তিনি সমাজের বিত্তশালীদের প্রতি দূর্যোগ মোকাবিলায় আহবান জানিয়ে বলেন, আপনারা আমাদের মাধ্যমে অনুদান দিয়ে গরীব দুঃখীদের পাশে দাড়াতে পারেন। হোক তা অর্থ দিয়ে বা খাদ্য সামগ্রী দিয়ে।

করোনা মোকাবিলায় এবং ত্রাণ বিতরণের জন্য উপজেলায় হট লাইন খোলা হয়েছে। প্রতিদিন এখান থেকেও ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছে মানুষ। এছাড়াও তারা মতামত সহ বিভিন্ন বিষয়ের তথ্য দিয়ে আমাদের পাশে রয়েছে।

আমরা আমাদের সাধ্যমত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। দূর্যোগের গুরুত্ব অনুযায়ী প্রয়োজনে সময় উপযোগী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।
তিনি আরও বলেন, মানব সেবাই পরম ধর্ম। করোনায় পরিস্থিতিতে কর্মহীন ও হতদরিদ্রের পাশে পাকুন্দিয়া উপজেলা প্রশাশন সর্বদাই আছে এবং থাকবে। সরকারের পাশাপাশি আমাদেরও অসহায় মানুষের পাশে দাড়ানো কর্তব্য বলেই আমি মনে করি।

আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
আমাদের ফেইসবুক পেইজ