চিত্র বিচিত্র

লাইকি ও টিকটকে ধংব্বশের মুখে পাকুন্দিয়ার কিশোর যুবকরা

আশরাফুল হাসান মোরাদ (বুরুদিয়া প্রতিনিধি)
আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে যেমন ব্যাপক উন্নতি লক্ষ করা যায় ঠিক তেমনি তার বীপরিত দিক ও মাঝে মাঝে লক্ষনীয়। তেমনি একটি দিক নিয়ে আজকের আলোচনা।

বর্তমান প্রজন্মের কাছে পরিচিত এক নাম
টিক-টক,চীনে যা ডুইয়িন নামেও পরিচিত। উইকিডিয়ার মতে আক্ষরিক অর্থে টিকটক হলো ‘গলা কম্পন ছোট ভিডিও’ যা হলো একটি সঙ্গীত ভিডিও প্ল্যাটফর্ম।সামাজিক নেটওয়ার্ক মাধ্যমে যা সেপ্টেম্বর ২০১৬ সালে চালু করা হয়েছিল । টিক-টকের প্রতিষ্ঠাতা ঝাং ইয়েমিং।

কিশোরগঞ্জের জেলার পাকুন্দিয়ার কিশোর যুবকদের মাঝে লাইকি এবং টিকটক এর ব্যাপক প্রভাব লক্ষ করা যায়। যাতে করে কিশোর ও যুবকরা নৈতিকতা থেকে অনৈতিক দিকেই বেশি ঝুকছে।

এসব বিভিন্ন ভিডিও দেখে যুবকরা তাদের চলাফেরা, আচার-আচরণ, শিষ্টাচার, নৈতিক সম্মান ও শ্রদ্ধাবোধ থেকে অনেকটাই দূরে সরে যাচ্ছে।

দেখা যায় যে তাদের চুলের কাটিং,দাড়ির কাটিং , পোশাক পরিচ্ছেদ ইত্যাদি সামাজিক নিয়ম পরিপন্থী। যাতে করে দেখাযায় তারা আরো বিভিন্ন অন্যায় মূলক কার্যক্রম এর সাথে জড়িয়ে যাচ্ছে।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এসব টিকটক, লাইকি ও অসামাজিক ভিডিও দেখে আজকের যুব সমাজ ধংব্বশের দিকে দাপিত হচ্ছে এবং বিভিন্ন নেশার সাথে নিজেকে জড়িয়ে নিচ্ছে । ক্যারিয়ার বিধ্বংসী এ নেশা থেকে যুব সমাজকে প্রতিহত না করা যায় তবে তার রূপ ভয়াবহ ধারন করতে পারে যে কোনো সময়। তাই সচেতন মহল দ্রুত এসব অপসংস্কৃতির প্রতিরোধ কামনা করছেন।

Nazmul
বার্তা সম্পাদক 01795995615
http://pakundiapratidin.com

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *