Pakundia Pratidin
ঢাকারবিবার , ২২ মে ২০২২
  1. আন্তর্জাতিক
  2. ইতিহাস
  3. ইসলাম ও জীবন
  4. কৃতি সন্তান
  5. জাতীয়
  6. জেলার সংবাদ
  7. তাজা খবর
  8. পাকুন্দিয়ার সংবাদ
  9. ফিচার
  10. রাজনীতি
  11. সাহিত্য ও সংস্কৃতি
আজকের সর্বশেষ সবখবর

পাকুন্দিয়ায় সিগারেট নিয়ে সিন্ডিকেট, হঠাৎ দাম বৃদ্ধি!

প্রতিবেদক
পাকুন্দিয়া প্রতিদিন ডেস্ক
মে ২২, ২০২২ ৯:০০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

শাহরিয়া হৃদয়, বিশেষ প্রতিনিধিঃহঠাৎ তালিকা ছাড়াই নিজেরা সিন্ডিকেট করে সিগারেটের দাম বৃদ্ধি করেছে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়ায় কর্মরত বিভিন্ন কোম্পানির এজেন্ট ও কর্মচারীরা। বর্তমানে রাজস্ব পরিশোধ করা সিগারেট গুলো হাট-বাজারে বাড়তি দামে বিক্রি করা হচ্ছে। যার ফলে রাজস্ব হলেও সরকার বঞ্চিত হচ্ছে রাজস্ব আয় থেকে।

সূত্র জানায়, এজেন্ট ও বিভিন্ন কোম্পানির কর্মচারীরা এপ্রিল মাস থেকে লাখ লাখ টাকার সিগারেট গুদামজাত করে রাখে। এরপর কোম্পানির যোগসাজে মে মাসে এসে বাজারে সিগারেট সরবরাহ অর্ধেকে নামিয়ে দেন তারা। তাই এরই ফলে বাজার সংকটের মুহূর্তে খুচরা দোকানিরা বেশী দামে সিগারেট বিক্রি করছে।

ফলে সিগারেট ক্রেতাদের সাথে খুরচা দোকানির প্রতিদিন দফায় দফায় বাকবিন্ডা লেগেই চলেছে।

খুচরা দোকানিরা জানান, আমাদের কাছে পাকুন্দিয়ার এজেন্ট ও কোম্পানির কর্মচারীরা নিয়মিত সিগারেট সরবরাহ করছে না। তারা এর আগে আমাদেরকে বলেছিল আপনারা বেশী করে সিগারেট কিনে রাখেন। কিন্তু আমরা ছোটখাটো দোকানদার এতো টাকা কথায় পাবো তাই সিগারেট কিনা হয়নি। এবং বেশী দামে সিগারেট কিনে নিয়ে এসে বেশী দামে বিক্রি করছি।

তবে এজেন্ট কোম্পানির পক্ষে চাকুরিরত কর্মচারীরা জানিয়েছেন, হঠাৎ করে সরবরাহ ৩০ ভাগ কমে গেছে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, পাকুন্দিয়া উপজেলার বিভিন্ন বাজার ও দোকানে মেরিজ, ডারবি ও শেখসহ বিভিন্ন ব্যান্ডের প্রতিটি সিগারেটের দাম বেড়েছে ১ টাকা থেকে ৩ টাকা।

এতে করে সিগারেট খাওয়া ক্রেতাদের সাথে খুরচা দোকানির প্রতিদিন দফায় দফায় বাকবিন্ডা ও হাতাতাতি লেগেই চলেছে।

এছাড়া অসাধু এজেন্টে ব্যাবসায়ীরা এভাবে সিন্ডেকেট করে সিগারেটের দাম বাড়ালেও এখন পর্যান্ত কনো রকম নিয়মিত বাজার মনিটরিং করা হয়নি।

এ দিকে এই অর্থবছরের বাজেট ঘোষণা না হলেও সিগারেটের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব আসতে পারে। আগের দাম অনুসারে রাজস্ব পরিশোধ করা সিগারেট গুলো বাড়তি দামে বিক্রি শুরু করেছে দোকানীরা। আর এ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে কয়েক হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন বিভিন্ন সিগারেট কোম্পানি ও ব্যবসায়ীরা। প্যাকেটের গায়ে দাম লেখা থাকলেও বাজারে অসাধু ব্যবসায়ীরা দাম নিচ্ছেন বেশী।

উৎপাদনকারী কোম্পানিই সিগারেট সরবরাহ করছে ঠিকি তবে পাইকারি ও খুচরা বিক্রেতারা মুনাফার জন্য আরো বেশি দামে বিক্রি করছে ।

উল্লেখ্য,বাজেট ঘোষণা না হলেও এখনো কোম্পানি গুলো পুরনো সিগারেট সরবরাহ করছে তাও আবার নতুন দামে। অন্যদিকে বাজেটের আগে একশ্রেণীর ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন ব্যান্ডের সিগারেট কিনে গুদামজাত করে রেখেন। এখন সেগুলো বেশি দামে বিক্রি করছেন তারা। এ প্রক্রিয়ায় ভোক্তাদের কাছ থেকে হাজার হাজার কোটি কোটি টার্কা হাতিয়ে নেয়া হলেও সে অনুযায়ী রাজস্ব পাচ্ছে না বর্তমান সরকার।

পাপ্র/সুআআ

error: Content is protected !!